তারিখ : ২৬ এপ্রিল ২০১৯, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নান্দাইলে সড়কের উপর হাটবাজার,দূর্ঘটনার আশংকা

নান্দাইলে সড়কের উপর হাটবাজার,দূর্ঘটনার আশংকা
[ভালুকা ডট কম : ১৩ এপ্রিল]
ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার নান্দাইল রোড বাজারের কোটি টাকার সরকারী স্থাপনা কোন কাজে আসছেনা। বর্তমানে সেখানে গো-মূত্রের এক বিরাট আস্তানা সহ অচল অবস্থায় পরিণত হয়েছে। একসময় এই বাজারটি অত্র এলাকার স্বনামধন্য বাজার হিসাবে বেশ সুপরিচিত ছিল। সরকারী এই স্থাপনা রেখে নান্দাইল রোড বাজার তাড়াইল-নান্দাইল সড়কের উপর হাট বসেছে। এতে করে যানচলাচল দূর্ভোগ সহ দূর্ঘটনার আশংকা রয়েছে।

সরজমিন গিয়ে দেখাযায়, মৎস্য বাজার বসানোর জন্য সরকারী জায়গায় পাকা মেঝে আরসিসি পিলারে ৩টি চৌচালা টিন সেড রয়েছে। পাশাপাশি তমহল (শাকসবজী) বাজারের জন্য আরও ২টি স্থাপনা রয়েছে। অথচ সেইসব স্থাপনা রেখে সড়ক ও জনপথ বিভাগের রাস্তার দুপাশে এবং রাস্তার উপরই হাট বসে। টিনসেড ঘরগুলো এখন কুকুর, শিয়াল সহ মানুষের মল-মূত্রে পরিত্যক্ত অবস্থা বিরাজমান। বিগত ২০০৯ সনে উক্ত বাজারে সরকারী জায়গায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। পরবর্তী সময়ে উচ্চেদকৃত জায়গায় জনস্বার্থে এই টিনসেডগুলো তৈরী করা হয়েছিল। যদিও স্থাপনাগুলো কাঠামোগত কোন দূর্বলতা বা অকেজো অবস্থানে নেই তথাপি সেগুলো অজ্ঞাত কারনে ব্যবহার হচ্ছে না।

এ বিষয়ে শুক্রবার হাটে গিয়ে জানাযায়, মৎস্য ব্যবসায়ীরা মল-মূত্রের দূর্গন্ধে টিনসেডের নিচে বসতে না পারায় সড়কের পাশে বসেছে। এছাড়া বাজারের সরকারী জায়গায় পুনরায় অবৈধ দোকানপাট স্থাপনা নির্মাণ করেছে পূর্ববর্তী দখলদাররা। যার ফল স্বরূপ মৎস্য ও তমহল বাজারের রূপ সৌন্দর্য্য হারিয়ে ফেলেছে। এতে করে সড়ক ও জনপথের রাস্তার দুপাশ ঘিরে মৎস্য সহ বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের হাট বসে। সপ্তাহে শুক্রবার ও মঙ্গলবার দুইদিন হাট বসে। উক্ত বাজারে একটি মাত্র সরকারী ল্যাট্রিন ও টিউবওয়েল রয়েছে যা প্রায় অকেজো।

এছাড়া বাজারের পানি নিষ্কাশনের ড্রেনেজ ব্যবস্থা খুবই খারাপ। শুধু তাই নয় বাজারের ভিতর দিয়ে নান্দাইল রোড উচ্চ বিদ্যালয়ের যাওয়ারা রাস্তার পাশে স্থাপিত সরকারী টয়লেটের ম্যানহোল খোলা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে দূর্গন্ধে দম বন্ধ হয়ে যায় ছাত্রছাত্রীদের।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যবসায়ী জানান,প্রতি বছর বাজারের ইজারার ডাক হয় তথাপি বাজারে মান উন্নয়ন হচ্ছেনা। নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাদ্দেক মেহেদী ইমাম জানান, সরজমিন তদন্তপূর্বক অচিরেই সড়কের উপর হাটবাজার ও সরকারী জায়গায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অনুসন্ধানী প্রতিবেদন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৭১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই