তারিখ : ২১ আগস্ট ২০১৯, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নওগাঁয় চাঁদা না দেওয়ায় বাড়িঘর ভাংচুর

নওগাঁয় চাঁদা না দেওয়ায় বাড়িঘর ভাংচুর ও মারপিট,হুমকি-ধামকী প্রদান অব্যাহত
[ভালুকা ডট কম : ১৯ এপ্রিল]
নওগাঁ সদর উপজেলার বনগাঁ নামাপাড়া গ্রামে চাঁদা না দেওয়ায় বসতবাড়ির জমিতে বাড়ি নির্মান করাকে কেন্দ্র করে ভাংচুর ও মারপিট করেছে প্রতিপক্ষরা। এ ঘটনায় নওগাঁ সদর মডেল থানায় ১১জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বনগাঁ নামাপাড়া গ্রামের এচাহাক আলীর ছেলে জামেদুল ইসলাম তাদের ক্রয়কৃত জমি দীর্ঘদিন ধরে ভোগদখল করে আসছিল। কিন্তু ওই জমির উপর টিনশেডের বাড়ি করে জামেদুল ও তার পরিবার দীর্ঘদিন ধরে ভোগদখল করে আসছিল। সম্প্রতি টিনশেডের বাড়ি ভেঙ্গে ইটের বাড়ি নির্মান করতে গেলে বনগাঁ যুবক সমিতির নামে চাঁদা দাবি করে একই গ্রামের মৃত: আফসার আলীর ছেলে আতাউল, মৃত: মহির উদ্দীনের ছেলে সাইফুল ইসলাম, শওকত আলীর এরশাদ আলী, এনতাজুলের ছেলে সবুজ হোসেনসহ বেশ কিছু লোকজন। জামেদুল চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় উক্ত আসামীরা ক্ষীপ্ত হয়ে রোববার রাতে দেশীয় অস্ত্রেসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তার বাবা এচাহাক আলী ও মাসহ পরিবারের সকলকে গাছের সাথে বেধে মারপিট ও বাড়িঘর ভাংচুর করে। এ সময় তাদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে তারা আরো ক্ষিপ্ত হয়। এক পর্যায়ে তারা বাড়িতে থাকা চাল, নগদ টাকা ও  স্বর্নালংকারসহ সকল মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এতে করে প্রায় ৪ লাখ টাকার ক্ষতি হয়। সেই সাথে পরিবারের মেয়েদেরকে শ্লীলতাহানীর ঘটনাও ঘটায়। এ ঘটনার পর জামেদুল বাদী হয়ে ১১জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেছে।

জামিদুল ইসলাম জানায়, প্রতিপক্ষরা তার ও তার পরিবারের সদস্যদের প্রাননাশের হুমকি প্রদান অব্যাহত রেখেছে। এমতাবস্থায় জামিদুল ইসলাম ও তার পরিবারের সদস্যরা চরম নিরাপত্তহীনতায় রয়েছে। বর্তমানে তিনি এলাকায় ঢুকতে পারছেন না। প্রানের ভয়ে বর্তমান তিনি এলাকা ছাড়া। এবং তার এক মাত্র মিযে নবম শ্রেণীর ছাত্রী জান্নাতুনকে ইস্কুলে যায়াতের পথে বিভিন্ন ভাভে বাধাঁ দেওয়া হয়। প্রতিপক্ষের হুমকির ভয়ে জামিদুল ইসলামের মিয়ে ইস্কুল যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে বলে জানা গেছে।  তাই তিনি এর সুষ্ট বিচার চান প্রশাসনের কাছে।

এ ব্যাপারে বনগাঁ যুবক সমিতির সাধারন সম্পাদক সবুজ হোসেন জানান, চাঁদাবাজী ও শ্লীলতাহানীর ঘটনা সঠিক নয়। তবে ঘটনার রাতে কালবৈশাখীর ঝড়ে জামিদুলের বাড়ি ভেঙ্গে যায়। আর ক্লাবের ছেলেরা সামান্যতম বাড়ি ঘরও ভাংচুর করেনি।নওগাঁ সদর মডেল থানার ওসি আব্দুল হাই জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অপরাধ জগত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই