তারিখ : ২৭ মে ২০১৯, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

আদমদীঘিতে ফণীর প্রভাবে ফসলের ক্ষতি

আদমদীঘিতে ফণীর প্রভাবে ফসলের ক্ষতি
[ভালুকা ডট কম : ০৪ মে]
বগুড়ার আদমদীঘিতে ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে দমকা ঝড়ো বাতাস ও বৃষ্টিপাত হয়েছে। এতে উপজেলায় ঝড়ো হাওয়ায় মাঠের আধা পাকা ধানগুলো শুয়ে পরেছে। ফলে ইরি-বোরো ফসলের ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়েছে। এছাড়া শনিবার সকাল থেকে বৃষ্টি ও দমকা হাওয়ার কারনে অধিকাংশ দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিলো। যানবাহনেরও তেমন চলাচল ছিলো না।

সরেজমিনে আদমদীঘির দমদমা, সান্দিড়া, খলকুড়া, বাঘার পাতার ঘুরে দেখা গেছে অধিকাংশ আধা পাকা ধানগুলো জমির উপর শুয়ে পড়েছে। এব্যাপারে কৃষক আকরাম হোসেন জানান, ঝড়ো বাতাসে শুয়ে পড়া ধানগুলো ২/১ দিনের মধ্যে ঘরে তুলতে না পারলে মাটিতে লেগে থাকা অংশ টেকে গাছ বের হয়ে যাবে। ফলে প্রতি বিঘায় আমাদের লোকসান গুনতে হবে।

কায়েতপাড়ার কৃষক ছায়ের আলী বলেন, তরিঘরি করে কিছু ধান কেটে ঘরে তুললেও অধিকাংশ জমির ধান মাঠেই রয়েছে। এমন ঝড়ো বৃষ্টির কারনে ৮বিঘা জমির পাকা ধান শুয়ে পরেছে। ফলে এসব জমির অর্ধেক ধান পাবো কি না এ নিয়ে শঙ্কায় রয়েছি।

অটোচার্জার চালক সাইফুল ইসলাম জানায়, শুক্রবার বিকেল থেকে শুরু হয়ে শনিবার দুপুর পর্যন্ত একটানা বৃষ্টির সঙ্গে দমকা হাওয়ায় ফণীর আতঙ্কে গাড়ী বের করতে পারিনি। তাছাড়া বাতাস ও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি লেগে থাকার করণে মানুষ আতঙ্কিত হয়ে বাড়ি থেকে বের হচ্ছিলো না এতে গাড়ী বের করলেও ভাড়া হবেনা ভেবে আমিও বের হইনি।

উপজেলা উপ-সহকারি কৃষি অফিসার কামরুল আহসান কাঞ্চন জানান, উপজেলায় ১২ হাজার ৪শত হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো ধানের আবাদ করা হয়েছে।এর মধ্যে চলতি মৌসুমে আংশিক কর্তন করা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় ফণির প্রভাবে কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে জানতে চাইলে তিনি জানান, ফসলে কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা এখনই নির্ধারণ করা সম্ভব নয় তবে ২/১দিনের মধ্যে জানানো যাবে।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

কৃষি/শিল্প বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৭৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই