তারিখ : ২৮ অক্টোবর ২০২০, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

ভালুকার করোনা আপডেট

২৯ জুন ২০২০, সোমবার
আক্রান্ত
২৪ ঘন্টা মোট
৫ জন ২২৯ জন
সুস্থ
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৮২ জন
মৃত্যু
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৩ জন

বিস্তারিত বিষয়

যে ভেষজে শ্বাসনালী ও ফুসফুস পরিস্কার থাকে

যে ভেষজে শ্বাসনালী ও ফুসফুস পরিস্কার থাকে
[ভালুকা ডট কম : ১০ জুন]
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও বিভিন্ন গনমাধ্যম সমুহে করনাভাইরাস প্রতিরোধর বিভিন্ন ভেষজ উপাদানের ব্যবহারের কথা বলা আছে। এসব উপাদানের যথার্থতা যাচাই করে খাওয়া উচিত। কোন কোন মাধ্যম থেকে জানা যায় যে, পরিমান মতো হলুদের গুঁড়া , গোল মরিচের গুঁড়া , আদা ও লেবু একসাথে জ্বাল  দিয়ে চায়ের মত পান করলে করনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়া যায় ।

অনলাইন, কৃৃৃষি তথ্য সার্ভিস ও ভেষজ বিজ্ঞান থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, দেহে উপস্থিত জৈব রাসায়নিক উপাদানগুলির ভারসাম্য এবং শারীরিক স্থিতির উপর মানুষের সুস্থ থাকা ও অসুস্থ হওয়া নির্ভর করে। যেকোনো ধরণের প্রভাবক দেহের ভিতরে ও বাইরে থেকে শারীরিক স্থিতির ভারসাম্যে তারতম্য ঘটালে রোগব্যাধি দেখা দেয়। পরিবেশের নির্জীব ও জীবজ উপাদান বা ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া ও বিভিন্ন অণুজীবসমূহ প্রভাবক হিসেবে কাজ করে থাকে। এসব পরিস্থিতিতে দেহের রোগপ্রতিরোধ  ক্ষমতা অত্যন্ত  গুরুত্বপূর্ণ  বিষয়। করনাকালীন উদ্ভূত পরিস্থিতিতে প্রতিরোধ ব্যবস্থা শক্তিশালী করার বিকল্প নেই। এ লক্ষে বিভিন্ন গণমাধ্যম ও বিশেষজ্ঞগণের আলচনার আলোকে নিম্নোক্ত ভেষজ উপাদানের গুরুত্ব উপস্থাপন করা হয়েছে। এসব ভেষজ উপাদান করোনাভাইরাস ও অন্যান্য রোগপ্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

যথা-গোল মরিচঃ মসলা জাতীয় ভেষজ ঊপাদান গোল মরিচ সবার পরিচিত। এতে রয়েছে অ্যান্টঅক্সিডেন্ট, এন্টিমাইক্রোভিয়াল উপাদান এবং ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, আয়রন, প্রোটিন, ভিটামিন এ, বি১, বি২, সি ও অল্প পরিমান ফ্যাট।

এটি নাক বন্ধ থাকা, শ্লেষ্মা দূর করা, গলা ব্যথা কমানো ও হাঁপানি উপশম করে। ভাইরাস সংক্রমণ রোধ করে। ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধি রোধ করে, মৃত কোষ দূর করে। শরীর গরম করে ঘামের মাধ্যমে দেহ থেকে টক্সিন বের করে। কোলস্টেরল কমিয়ে দেহে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখে। পাকস্থলীতে হাইড্রোক্লোরিক এসিড ক্ষরণের মাত্রা বাড়ায়।

হলুদঃ অলৌকিক ভেষজ নামে পরিচিত হলুদের গুণাবলী অনেক। এতে রয়েছে কারকামিন নামক যৌগ, উদ্বায়ী তেল টারমারেন, ফাইবার, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও ভিটামিন সি, বি৬ ইত্যাদি।

এটি ইনফ্লুয়েঞ্জা, সর্দি-কাশি এবং অ্যানিমিয়ার হাত থেকে রক্ষা করে। এর চমৎকার রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা রয়েছে। এর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট,এন্টিইনফ্লেমেটরি ও এন্টিক্যান্সার উপাদান দেহকে রক্ষা করে। শ্বাস ক্রিয়াকে শক্তিশালী করে, ফুসফুসের ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। প্রোস্টেট ও অগ্ন্যাশয়ের ক্যান্সার দূর করে। মহামারি জাতীয় রোগের ক্ষেত্রে প্রতিরোধী ভূমিকা পালন করে। রক্তনালীর ভিতরে রক্ত জমাট বাধতে বাধা দেয়, রক্ত পরিষ্কার রাখে। যকৃত, ত্বক, পিত্তরস, দাঁতের স্বাস্থ ভাল রাখে। হাড়ের ক্ষয় রোধ করে, হার্ট ভাল রাখে।

আদাঃ এতে রয়েছে পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, জিঙ্ক, খনিজ, ক্রোমিয়াম, উদ্বায়ী তেল, জিনজিয়াবিন এনজাম, এন্টিইনফ্লেমেটরি ও এন্টিমাইক্রোভিয়াল উপাদান।এটি সাইনাসের জটিলতা দূর করে। হাঁপানি, কাশি উপশম করে, সর্দি-কাশি ও ভাইরাস জ্বর সেরে যায়। মাইগ্রেনের ব্যথা, বাতজ্বর উপশম করে। ফুসফুসের সংক্রমণ প্রতিরোধ করে, শ্বাস ক্রিয়া শক্তিশালী করে। বসন্ত, আমাশয়, জন্ডিস রোগের চিকিৎসায় ব্যবহার হয়। কোলন ক্যান্সারের ক্ষেত্রে ক্যান্সার কোষ ধ্বংস করে।  

লেবুঃ  সাইট্রাস জাতীয় এ ভেষজ ফলের উপকারীতা বহুবিধ। এতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন সি, ফলিক এসিড, অ্যাসকরবিক এসিড, আয়রন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম ও ফসফরাস।

প্রচুর ভিটামিন সি থাকায় এটি এন্টিসেপ্টিক হিসেবে কাজ করে ও সর্দি-কাশি প্রতিরোধ করে।  শ্বাসনালী ও গলার ইনফেকশন ভাল করতে কাজ করে। জ্বর, ইনফ্লুয়েঞ্জা ও ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ করে। রক্তের শ্বেত কণিকা বাড়িয়ে এন্টিবডি উৎপাদনে সহায়তা করে। ফুসফুস পরিষ্কার করে অ্যাজমা উপশম করে। হার্ট ভাল রাখে, স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়। প্রোস্টেট ও স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। যকৃত ভাল রাখে, মানবদেহে পিএইচ এর মাত্রা সমন্বয় করে স্বাভাবিক রাখে।

প্রতিকার অপেক্ষা প্রতিরোধ উত্তম। উল্লেখিত ভেষজ সমূহে যে উপাদান রয়েছে তা শ্বসনতন্ত্রের হাইজীন তথা স্বাস্থ্য রক্ষা করবে,পাশাপাশি দেহের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করবে। এসময়ে শ্বসনতন্ত্রের হাইজীন অর্থাৎ শ্বাসনালী ও ফুসফুসের স্বাস্থ্য ভাল রাখার বিকল্প নেই। উদ্ভূত পরিস্থিতি এবং যে কোন ধরনের স্বাস্থ্যগত সমস্যা মোকাবিলায় শারীরিক সক্ষমতা অধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তাই সুষম খাদ্যাভ্যাসের তালিকায় এসব ভেষজ উপাদান পরিমিত পরিমানে রেখে জৈব রাসায়নিক উপাদানগুলির ভারসাম্য এবং শারীরিক স্থিতি বজায় রাখা যেতে পারে।

লেখক/বার্তা প্রেরক
জাহাঙ্গীর আলম তরফদার
প্রভাষক, উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগ
সরকারি এম এম আলী কলেজ, টাঙ্গাইল




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

স্বাস্থ্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৮৩ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই