তারিখ : ১৫ আগস্ট ২০২০, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম

ভালুকার করোনা আপডেট

২৯ জুন ২০২০, সোমবার
আক্রান্ত
২৪ ঘন্টা মোট
৫ জন ২২৯ জন
সুস্থ
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৮২ জন
মৃত্যু
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৩ জন

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের হাতে জিম্মি পৌরবাসী

ভালুকায় ৮মাস যাবত পৌরসভার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক কেটে রাখায় জনসাধাণের চরম দুর্ভোগ
[ভালুকা ডট কম : ০১ জুলাই]
ভালুকা পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের একটি জন গুরুত্বপূর্ণ টিএন্ডটি সড়কটির মাঝখান দিয়ে খনন করে আরসিসি ড্রেন করার নামে রাস্তা কেটে রেখে অংশিক কাজ করে ফেলে রাখায় স্থানীয় জন সাধারণ ব্যাপক দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। এ নিয়ে পৌর কর্তৃপক্ষের কোনো মাথা ব্যথা নেই। ইতিমধ্যেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বেশ কয়েক বার চলতি বিল উত্তোলন করে নিয়ে গেছেন।

সূত্রে জানাযায়,ভালুকা পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের মাত্র পাঁচ শত ৫০মিটার রিজেক্টপেবম্যান্ট(ঢালাই রাস্তা) ও এক হাজার,৩শত,৯৫মিটার আরসিসি ড্রেনের কাজের জন্য মিউনিসিপ্যাল গর্ভনেন্স এন্ড সার্ভিসেস প্রজেক্টের আওতায় অর্থায়ন করছেন বাংলদেশ সরকার ও আইডিএ। প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ধারা হয় ৪কোটি,২৫লাখ, ৮২হাজার,১শত,১০ টাকা। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স মহিবুল হক গত ১৯মার্চ২০১৯ইং সালে কাজ শুরু করেন। কাজটি দুই ভাগে বিভক্ত প্রথম অংশ ভালুকা বিরুনিয়া সড়কের ৫শত৫০মিটার রিজেক্টপেবম্যান্ট রাস্তার সাথে ৩শত ৮০মিটার ড্রেন ও দ্বিতীয় অংশ বিরুনিয়া সড়ক থেকে মেজর ভিটা আঁখিকুঞ্জ পর্যন্ত টিএন্ডটি রোডের ১হাজার, ২৫মিটার ড্রেনের কাজ রয়েছে,কাজের মেয়াদ ছিল এক বছর।

সরেজমিনে দেখা যায় ভালুকা বিরুনিয়া সড়কের বেশ কয়েক জায়গায় এখনো ড্রেনের কাজ অসম্পূর্ণ রয়েছে। এ ছাড়াও আট মাস পূর্বে টিএন্ডটি রোডে ড্রেনের কাজ শুরু করেও অর্ধেক কাজ শেষ করতে পারেনি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি। রাস্তার মাঝখান দিয়ে খনন করায় গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি বর্তমানে অচল অবস্থায় পড়ে রয়েছে। এতে রাস্তার আশপাশে বসবাসকারী পৌরবাসীরা যাতায়তে চরম জন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। ইতিমধ্যেই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান বেশ কয়েক বার চলতি বিল উত্তোলন করে নিয়ে গেছেন। তাই ঠিকাদারের এ কাজ নিয়ে তেমন কোনো মাথা ব্যথা নেই।

সম্প্রতি ভালুকা-গফরগাঁও সড়কটির সংস্কার কাজ শুরু হওয়ায় বাসস্ট্যান্ড শিমুলতলায় অল্প বৃষ্টিতেই হাঁটু পানি হয়ে যায়। রাস্তার একপাশ ঢালাই করায় অপর অংশ দিয়ে বাস, ট্রাক,সিএনজিসহ সব ধরনে যানবাহন চলাচল করায় সারাদিন যানজট লেগেই থাকে। বিকল্প রাস্তা হিসাবে টিএন্ডটি রোডটি ব্যবহার করা যেতো। সেটাও বন্ধ রয়েছে।

গত কোরবানী ঈদের সপ্তাহ খানেক পূর্বে এ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ঈদের ঘর মুখো মানুষের কথা চিন্তা না করে ভালুকা বিরুনিয়া সড়কটি পুরোটা বন্ধ করে রাস্তায় ঢালাইয়ের কাজ শুরু করেন।কাজের মেয়াদ ছিল চলতি বছরের মার্চের ১৯তারিখ পর্যন্ত। প্রথম দফায় মেয়র ৭৩দিন বাড়ানোর পর করোনার অযুহাতে বিশ্বব্যাংক চলতি বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা আবুল কালাম জানান,পিচ করা রাস্তা কেটে ড্রেন করা হচ্ছে ৮টি মাস যাবত এ এলাকার মানুষকে চরম কষ্ট দিচ্ছে।পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলরের পুরো দায়িত্ব রয়েছে মানুষের কষ্ট লাগব করা। পরস্পর শুনা যাচ্ছে এ কাজে সরিষাতেই ভূঁত রয়েছে।

ঠিকাদার শাহজাদা হোসেন জানান, করোনার কারণে শ্রমিকরা চলে যাওয়ায় কাজ বন্ধ ছিল। বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিনিধিও করোনা কারণে নিজ নিজ দেশে চলে গেছেন। এ পর্যন্ত কত টাকা চলতি বিল নিয়েছে এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার স্থানীয় প্রতিনিধি মিল্টন বলতে পারবেন রানিং বিল এ পর্যন্ত কত টাকা উত্তোলন  করা হয়েছে।

ভালুকা পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী সাইফুজ্জামান তালুকদার জানান, করোনা কারনে রাস্তার কাজ বন্ধ ছিল এখন কাজ করছে।#




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৮৩ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই